হেডলাইন
◈ একদিনে হাসপাতালে রেকর্ড ৪৩৮ ডেঙ্গু রোগী! ◈ আমার গ্রাম-আমার শহর’ বাস্তবায়নে ২৪৫ প্রকল্প ◈ সীমান্তের ঘটনায় আরাকান আর্মি-আরসার ওপর দায় চাপালো মিয়ানমার! ◈ ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে স্থায়ী নির্দেশনা চেয়ে রিট! ◈ সাংবাদিক শাকিল হাসানকে হত্যাচেষ্টার মামলায় রায় ১৮ অক্টোবর! ◈ যুবলীগের সম্পাদক নিখিলসহ ৫০০ জনের বিরুদ্ধে বিএনপির মামলার আবেদন! ◈ শহীদ আফ্রিদির সংস্থায় সেই ব্যাট দিলেন নাসিম শাহ ◈ হঠাৎ মোদি ও এরদোগানের বৈঠক ◈ সাগরে আবারও লঘুচাপ সৃষ্টির আভাস, বাড়তে পারে বৃষ্টি ◈ নতুন রুপে আবার অভিনয়ে নিয়মিত রত্না ◈ ওমরাহ পালনে সৌদি গেলেন টাইগার অলরাউন্ডার ◈ জাতীয় পার্টি কোনো জোটে নেই: জিএম কাদের ◈ রানির শোভাযাত্রায় ডায়ানার যে স্মৃতি মনে দাগ কেটেছে প্রিন্স উইলিয়ামের ◈ মৃত্যুর পরে কি হয় তাদের লাশ || ◈ শান্তর ভূয়সী প্রশংসায় যা বললেন শ্রীরাম ◈ রাশিয়ার বিরুদ্ধে যে অঙ্গীকার করলেন জেলেনস্কি ◈ বিএনপি নেতা শাহ মোয়াজ্জেম আর নেই ◈ ফের নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার সাকিব ◈ রাশিয়া প্রথমবারের মতো ইরানের ড্রোন ব্যবহার করেছে ◈ ভারত সফরে বাংলাদেশ কী পেল, যা বললেন প্রধানমন্ত্রী
হোম / রাজনীতি / বিস্তারিত

For Advertisement

ঈদের পরেই ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটি!

১৬ এপ্রিল ২০২২, ১২:৪৫:৫৯

দলের সর্বোচ্চ হাইকমান্ড থেকে জানা গেছে ঈদের পরেই গঠিত হচ্ছে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের আহ্বায়ক কমিটি। এ লক্ষ্যে চূড়ান্ত তালিকা নাম যাচাই বাছাই পূর্বক ঘোষিত হতে পারে।আহ্বায়ক কমিটি সম্ভাব্যতা নিয়ে হাই কমান্ডের নিকট কয়েকটি বিষয় চূড়ান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

১/অত্র সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সেক্রেটারি উক্ত আহবায়ক কমিটিতে থাকবে না।

২/ তবে সুপার ফাইভ একজনকে আহবায়ক করা হতে পারে।

৩/ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ হতে একজনকে সদস্য-সচিব করা হবে।

৪/যোগ্যতা ও সাংগঠনিক তৎপরতা বিবেচনায় কয়েকজন সহ-সভাপতি ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সম্পাদকমন্ডলী হতে যুগ্ম আহ্বায়ক করা হবে।

৪/তবে গত কমিটিতে বাদ পড়া কয়েকজনের নাম এই তালিকায় এবার দেখা যাবে।

৫/আহবায়ক কমিটির সদস্য সংখ্যা ৫১ কিংবা ৭১ সদস্য হতে পারে।

৬/ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শীর্ষ কয়েকটি ইউনিটের আহবায়ক কমিটি গঠিত হতে পারে।

৭/আগামী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ব্যাপক আকারে আহ্বায়ক কমিটি পূর্ণাঙ্গরূপে হতে পারে।

ইতিমধ্যেই ছাত্রদলের অভিভাবক তারেক রহমানের নিকট বিভিন্ন ছাত্রনেতাদের পোর্টফলিও জমা প্রদান করা হয়েছে। তিনি এদের মধ্য থেকে যাচাই বাছাই পূর্বক আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করবেন।

সেক্ষেত্রে আহ্বায়ক হিসেবে সার্বিক বিবেচনায় পছন্দের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনাক উল ইসলাম শ্রাবন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল।

সদস্য সচিব পদে আলোচনায় আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, সদস্য সচিব আমানউল্লাহ আমান,  মোহাম্মদ ঝলক মিয়া ও নিজামুদ্দিন রিপন প্রমুখ।

এ লক্ষ্যে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দেওয়া হচ্ছে। মূলত মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় কমিটি ভেঙে দেওয়া হচ্ছে। তবে সংগঠনটির নতুন নেতৃত্ব এবার ভোটে নির্বাচিত হবে না। সরাসরি পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে।

নীতিনির্ধারক সূত্রে জানাগেছে, ছাত্রদলের সাংগঠনিক অভিভাবক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান নিজেই যোগ্য ও পরীক্ষিত নেতাদের বিষয়ে খোঁজ নিয়েছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যেই কমিটি ঘোষণা করা হবে।

উল্লেখ্য যে- মঙ্গলবার রাতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের কমিটি গঠনের বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের মতামত নেন তারেক রহমান। বিকাল ৪টা থেকে রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় ৪৩ জন নেতার মতামত নেন তিনি। পৃথকভাবে নেওয়া ছাত্রদল নেতাদের মতামতের মধ্যে অধিকাংশই নতুন কমিটির পক্ষে অবস্থান নেন।

বর্তমান কমিটির বিষয়ে কী করা উচিত, নতুন কমিটি করলে কী ধরনের নেতা নির্বাচন করা উচিত এবং জেলা কমিটির বিষয়ে কী করা উচিত ইত্যাদি নানা প্রশ্ন করেন তারেক রহমান। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় নেতারা তারেক রহমানকেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার ন্যস্ত করেন।

মত নেওয়ার সময় ছাত্রদলের ৬০ সদস্যের আংশিক কমিটির মধ্যে ঢাকার বাইরে ও অসুস্থতাজনিত কারণে ১২ জন অনুপস্থিত ছিলেন। সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র সহসভাপতি, যুগ্ম সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক উপস্থিত থাকলেও তাদের মতামত নেওয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিলে ফজলুর রহমান খোকন সভাপতি এবং ইকবাল হোসেন শ্যামল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ওই বছরের ২১ ডিসেম্বর ৬০ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর এ কমিটিকে পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি বর্তমান নেতৃত্ব। গত বছরের সেপ্টেম্বরে কেন্দ্রীয় কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। এরপর থেকে নতুন কমিটি গঠনের দাবি ওঠে সংগঠনের মধ্য থেকে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের কাছে মতামত দেওয়া অন্তত ১০ নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা বলেছেন বিগত আড়াই বছরে বর্তমান নেতৃত্ব কমিটিকে পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি। আগামীতেও পারবে না। এর জন্য মূলত কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দায়ী। তারা কমিটিকে পূর্ণাঙ্গ করার অজুহাতে কমিটির মেয়াদ বাড়ানোর কৌশল নিতে চান।

এছাড়া কেন্দ্রীয় কমিটির অধীনে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ইউনিট শাখা কমিটিও গঠন করা যায়নি। এক্ষেত্রেও কেন্দ্রের শীর্ষ দুই নেতা ‘মাই ম্যান’ রাখার জন্য অযোগ্যদের দিয়ে কমিটি করার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্তদের চাপে রাখার কারণে তা হয়নি। এতে দল ও সংগঠনের ক্ষতি হবে, সংগঠনের ধারাবাহিকতা নষ্ট হবে, নতুন নেতৃত্বের পথ তৈরির পথ বাধাগ্রস্ত হবে। তাই তারা নতুন কমিটি গঠনের জন্য সংগঠনের অভিভাবক তারেক রহমানের কাছে আবেদন জানিয়েছেন।

নেতাকর্মীরা জানান, তবে এটাও ঠিক খোকন-শ্যামল কমিটির সময়ে সারা দেশে তৃণমূল পর্যায়ে ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন হয়েছে, নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। সারা দেশে জেলা ও সমমান পূর্ণাঙ্গ ও আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা ও সমমান পর্যায়ে, এমনকি ইউনিয়ন পর্যায়েরও কমিটি গঠন হয়েছে। আবার অনেক ব্যর্থতার মধ্যে একদিকে যেমন কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেনি, তেমনি সংগঠনের সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রীয় কমিটির অধীনে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ইউনিট শাখাও গঠন করতে পারেনি।

ছাত্রদলের কর্মকাণ্ড মূল্যায়ন করে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, ‘সংগঠনকে গতিশীল রাখতে যে কোনো সংগঠনেরই নিয়মিত কমিটি হওয়া দরকার। নতুন কমিটির বিষয় সিদ্ধান্ত নেবেন আমাদের অভিভাবক তারেক রহমান। তিনি যে সিদ্ধান্ত নেবেন আমরা সেই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাব।’

এ প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন, ‘আমাদের অভিভাবক তারেক রহমান আমাদের প্রতিটি নেতা ও কর্মীর কার্যক্রম ও ভূমিকা সম্পর্কে সম্পূর্ণ ওয়াকিবহাল। তিনি কমিটি পুনর্গঠন এর ক্ষেত্রে সকল নেতাকর্মীদের মতামতের সারমর্ম গ্রহণ করেছেন। আগামী নির্বাচন ও সরকার পতনের লক্ষ্যে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে ত্যাগী, অভিজ্ঞ, সাহসী ও যোগ্য নেতৃত্ব কে বেছে নিবেন।’

For Advertisement

পূর্বাকাশ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: