হেডলাইন
◈ মিরাজের অনবদ্য সেঞ্চুরি ◈ আমাদের ভাগ্য আর কারও হাতে নেই: এরদোগান ◈ সংঘাত নয়, আমরা সমঝোতায় বিশ্বাসী: প্রধানমন্ত্রী ◈ খেলায় ফিরেই গোল, পেলে-রোনালদো রেকর্ডে ভাগ বসালেন নেইমার ◈ ক্রিমিয়ার সেই সেতু দিয়ে গাড়ি চালিয়ে গেলেন পুতিন ◈ ওয়াসার এমডির বৈধতা রিটের আদেশ আজ ◈ ব্রাজিল নেইমারনির্ভর দল নয়’ ◈ চীনা প্রেসিডেন্টকে নিয়ে সৌদি যুবরাজের নতুন সমীকরণ! ◈ ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আপিল শুনানি শুরু ◈ এমবাপ্পের জোড়া গোলে পোল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্স ◈ লাপিডের বিরুদ্ধে সেনা অভ্যুত্থানের অভিযোগ নেতানিয়াহুর ◈ ট্রেনের সময়সূচিতে বড় পরিবর্তন আসছে ◈ ব্রাজিল শিবিরে ফের দুঃসংবাদ ◈ ইউক্রেনের ১৭ দূতাবাসে রহস্যজনক প্যাকেট ◈ নয়াপল্টনে সমাবেশের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবে বিএনপি, আশা আইজিপির ◈ স্পেনকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলোতে জাপান ◈ রাশিয়ার যুদ্ধে ইউক্রেনকে যে প্রতিশ্রুতি দিল যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্স ◈ ভীতির সংস্কৃতি চলছে, উন্নয়নের নিচে চোরাবালি ◈ ৯২ তম জন্মদিনে আইনজীবীদের ভালবাসায় সিক্ত হলেন ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার! ◈ সানিয়ার সঙ্গে বিচ্ছেদ হলে শোয়েবকে বিয়ে করবেন কিনা, যা বললেন পাকিস্তানি অভিনেত্রী
হোম / লাইফস্টাইল / বিস্তারিত

For Advertisement

এই শীতে সৌন্দর্য ধরে রাখার গোপন কৌশল!

১১ নভেম্বর ২০২১, ১০:৩৫:৩৯

প্রকৃতিতে এখন শীতের আগমন। এ সময় ত্বক হয়ে উঠে শুষ্ক। শীতকালে ত্বকের প্রয়োজন আর্দ্রতা। প্রাকৃতিক উপাদানে ত্বকের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন শীতকালে।ত্বকের যত্নে বেছে নিতে পারেন নিচের উপাদানগুলো-

মধু: সবচেয়ে শক্তিশালী প্রাকৃতিক উপাদান মধু। যা সাধারণত প্রতিটি ঘরেই থাকে। মধু প্রকৃতির সবচেয়ে শক্তিশালী ময়েশ্চরাইজারগুলোর মধ্যে একটি। ময়েশ্চারাইজের পাশাপাশি ত্বকের সূক্ষ্ম রেখা দূর করতেও সাহায্য করে মধু।

দুধ: ত্বকের যত্নে প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে দুধ। ত্বককে নরম, উজ্জ্বল ও কোমল করতে দুধ ব্যাপক ভূমিকা রাখে। দুধের পুষ্টি ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও ভূমিকা রাখে।

কলা: কলা হচ্ছে প্রাকৃতিক উপাদান যা ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে। কলার মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি, এ পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস এবং কার্ব‌োহাইড্রেট। এই সব উপাদান শুষ্ক ত্বকের সমস্যাকে দূর করার জন্য ভীষণভাবে কার্যকর। এর জন্য কলার পেস্টে নারকেল তেল যোগ করে ত্বকের ওপর প্রয়োগ করুন। হালকা শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি শুষ্ক ত্বকের সমস্যাকে দূর করতে সাহায্য করবে।

বেসন ও দুধ: বেসন ত্বকের ক্ষেত্রে দারুণ উপকারী। ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি বেসন ও দুধের তৈরি ফেস প্যাক নিয়ন্ত্রণে রাখবে আপনার ত্বকের শুষ্কতা। এর জন্য এক চামচ বেসনের সঙ্গে দুধ এবং এক চিমটে হলুদ গুঁড়া দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে ত্বকের ওপর প্রয়োগ করুন। তারপর ২০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

নারকেল তেল: শুষ্ক ত্বকের ওপর দারুণ কার্যকরী প্রভাব ফেলে নারকেল তেল। এক চামচ বেসনের সঙ্গে পরিমাণ মতো নারকেল তেল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন এবং ত্বকের ওপর প্রয়োগ করুন। ৩০ মিনিট ত্বকের ওপর রাখার পর গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এই শীতে শুষ্ক ত্বকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে এই ফেস প্যাকটি প্রতিদিন একবার করে ব্যবহার করুন।

ময়েশ্চারাইজারের ব্যবহার

শীতের শুরুতেই ত্বকে এমন ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত, যাতে তেলের পরিমাণ বেশি। সেই সঙ্গে রাতে যে নাইট ক্রিম ব্যবহার করা হয়, তা-ও যেন ওই রকম হয়। কারণ, এসব ক্রিম ত্বক আর্দ্র রাখতে বেশি সহায়ক।

সানস্ক্রিন ব্যবহার জরুরি

অনেকেই মনে করেন শীতকালে সানস্ক্রিন ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। কিন্তু শীত হোক কিংবা গ্রীষ্ম মৌসুম—সরাসরি রোদ সব সময় ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই শীতের মৌসুমেও বাইরে বের হওয়ার অন্তত ৩০ মিনিট আগে মুখে, হাত ও পায়ে সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন।

হাতের যত্ন নিন

মুখের ত্বকের যত্ন নিয়ে মানুষ যতটা সচেতন, অনেক সময় হাতের যত্নের বিষয়ে ততটা দেখা যায় না। যদিও হাতের ত্বক শীতকালে অনেক বেশি রুক্ষ হয়ে পড়ে। বিশেষ করে যাঁদের বারবার হাত ধুতে হয়, তাঁরা এই সমস্যায় বেশি ভোগেন। এ সময় হাতে ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। বারবার যাঁদের হাত ধুতে হয় কিংবা স্যানিটাইজ করতে হয়, তাঁদের দিনে কয়েকবার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা দরকার।

সুন্দর পায়ের জন্য

শীত মৌসুমে পায়ে মোজা পরে থাকার বিকল্প নেই। এতে পায়ের ত্বক ঝকঝকে, মসৃণ থাকে। এ ছাড়া শীতের সময় পেট্রোলিয়াম জেলি কিংবা গ্লিসারিন দিয়ে পায়ের ত্বকে ম্যাসাজ করতে পারেন। সপ্তাহে একবার এক্সফোলিয়েট করে পায়ের ত্বকের মৃত কোষ তুলে নিন। প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে সামান্য যত্ন শীত মৌসুমে আপনার পায়ে ত্বক সুন্দর রাখবে।

বেশি বেশি পানি পান

শীত মৌসুমে অনেকে তুলনামূলক কম পানি পান করে থাকেন। এটা ত্বকের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। ত্বকের জন্য তো বটেই, শুষ্ক মৌসুমে সুস্থ থাকার জন্য বেশি বেশি পানি পান করা দরকার। শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দিলে তা একদিকে ত্বকে নানা রোগব্যাধির জন্ম দেয়, ত্বক খসখসে ও রুক্ষ হয়ে যায়; অন্যদিকে পানির অভাব নানা শারীরিক সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

নিয়ম মেনে গোসল

প্রকৃতিতে শীত এলে অনেকেই হট বাথ নিতে পছন্দ করেন। এ সময় অনেকেই অতিরিক্ত গরম পানি গায়ে ঢালেন। এতে ত্বক আরও শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে পড়ে। যদি ডায়াবেটিস থাকে, তাহলে অজান্তেই ত্বক পুড়ে যেতে পারে। কারণ, তাঁদের অনুভূতি শক্তি তুলনামূলক কম থাকে। তাই শীত মৌসুমে নিয়ম মেনে গোসল করুন। এ সময় গোসলে অতিরিক্ত গরম পানির ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। গোসলে কুসুম গরম পানি ব্যবহার করুন।

For Advertisement

পূর্বাকাশ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: