ADS
হেডলাইন
◈ বেগমগঞ্জে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে বিক্ষোভ মিছিল, ফেনীতে সংঘর্ষ! ◈ সরকার কোন দুঃখে এসব করতে যাবে: ওবায়দুল কাদের ◈ ব্রিটিশ এমপি হত্যা: ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেন জনসন ◈ দেশ বিক্রি করে তো ক্ষমতায় আসবো না: প্রধানমন্ত্রী ◈ দুর্গাপূজা: ইতিহাস ও শিক্ষা ◈ নির্বাচন কমিশন: সার্চ কমিটি বিশ্বস্ত হতে হবে আগে! ◈ খালেদার সুস্থতা কামনায় দেশব্যাপী দোয়া কর্মসূচি ◈ বিএনপি কখনো সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয় না: ফখরুল ◈ আমরা নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছি: ডিএমপি কমিশনার ◈ কুমিল্লার ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ◈ খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেশে সম্ভব নয়: মির্জা ফখরুল ◈ ডেঙ্গুজ্বর নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ২১১, মৃত্যু ২! ◈ অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধ ঠেকাতে হাইকোর্টে দুই আবেদন! ◈ বাবরের অবৈধ সম্পদ অর্জন মামলার রায় আজ! ◈ আজ মহাসপ্তমী! ◈ ঋণখেলাপি কমাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশ! ◈ হালের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় একজন – ফারজানা রিক্তা! ◈ কাজল কালো চোখটি তোমার! ◈ সড়ক দুর্ঘটনায় মুহাম্মদ (সা.) -এর ব্যাঙ্গাত্মক চিত্র আঁকা কার্টুনিস্টের মৃত্যু! ◈ শুরু হচ্ছে বিশ্ব মৃদু হাসি প্রতিযোগিতা!
হোম / জাতীয় / বিস্তারিত

For Advertisement

দেশবরেণ্য ফটোসাংবাদিক লুৎফর রহমান বিনু মৃত্যুবরণ করেছেন।

২৬ জুলাই ২০২১, ৫:৩৮:২০

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাবেক ব্যক্তিগত আলোকচিত্রী, ফটোসাংবাদিক, বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্টস অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ লুৎফর রহমান বীনু মারা গেছেন। আজ সোমবার দুপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বিএনপির চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য পূর্বাকাশ কে জানিয়েছেন।

শায়রুল কবির খান বলেন, লুৎফর রহমান বীনু আজ হঠাৎ হৃৎপিণ্ডের রক্তক্ষরণে ইবনে সিনা হাসপাতালে দুপুর ১২টায় ইন্তেকাল করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।

লুৎফর রহমান বীনুর মৃত্যুতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শোক জানিয়েছেন। তিনি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।

ইবনে সিনা হাসপাতাল থেকে জ্যেষ্ঠ এ ফটোসাংবাদিকের মরদেহ খিলগাঁওয়ে তাঁর নিজ বাসায় বাসায় নেওয়া হয়েছে।

লুৎফর রহমান বীনুর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্টস অ্যাসোসিয়েশন। এক শোকবার্তায় প্রয়াত এ আলোকচিত্রীর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে সংগঠনটি। সামাজিক মাধ্যমে শোক প্রকাশ ও স্মৃতিচারণ করে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করছেন তাঁর সহযাত্রী ও বন্ধুরা।

আলোকচিত্রী লুৎফর রহমান বীনু ১৯৬৯ সাল থেকে ফটোগ্রাফি শুরু করেন। অনেক বিখ্যাত ছবি তাঁর তোলা। নব্বইয়ে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনেও প্রচুর ছবি তাঁরই তোলা। দীর্ঘদিন তিনি কাজ করেছেন বিভিন্ন পত্রপত্রিকায়। তাঁর আলোকচিত্রের প্রদর্শনী হয়েছে বেশ কয়েক বার। এর বাইরে আলোকচিত্র নিয়ে তিনি লিখেছেন বই।

লুৎফর রহমান বীনুর আলোকচিত্র নিয়ে প্রকাশিত বই ‘এ চলার শেষ নেই’ আলোকচিত্রের একটি সমৃদ্ধ আকর গ্রন্থ। তাঁর আলোকচিত্রে উঠে এসেছে বিভিন্ন সময়ের ঐতিহাসিক মুহূর্ত।

ওই বই থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, লুৎফর রহমান বীনুর জন্ম ১৯৫৫ সালে ঢাকায়। ১৯৬৯ সালে আলোকচিত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশ। তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৬ সালে পেশাগত জীবন শুরু করেন দৈনিক কিষাণে। তবে এক যুগেরও বেশি সময় দৈনিক সংবাদে কাজ করার মাধ্যমে বীনু একজন আলোকচিত্র সাংবাদিক হিসেবে সুখ্যাতি লাভ করেন। দৈনিক সংগ্রাম, দৈনিক দেশ, মর্নিং পোস্ট, মর্নিং সান এবং দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকাতেও তিনি কাজ করেছেন।

বীনুর তোলা সংবাদচিত্র ফার ইস্টার্ন ইকোনমিক রিভিউ, দ্য টেলিগ্রাফ, ফ্রন্টলাইন, দ্য হিন্দুস্তান টাইমস, ইন্ডিয়া টুডে ও দ্য স্টেটসম্যানে প্রকাশ হয়েছে। তিনি ১৯৮৮ সালে জাতীয় জাদুঘরের স্বাধীনতা দিবস প্রদর্শনীর বিশেষ পুরস্কার এবং ১৯৮৯ সালে পরিবেশ সাংবাদিকতার ওপর এফইজেবি/এসকাপ পুরস্কার লাভ করেন।

১৯৮৮ সালে এএমআইসি স্কলারশিপ পেয়ে তিনি সিঙ্গাপুরে প্রশিক্ষণ লাভ করেন। আলোকচিত্র সাংবাদিকতার ওপর ১৯৮৬ সালে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট থেকেও তিনি প্রশিক্ষণ লাভ করেন। ২০০৪ সালে চীনে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড প্রেস ফটোগ্রাফিতে অংশ নেন।

For Advertisement

পূর্বাকাশ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Comments: